বুধবার ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিষ প্রয়োগেও মরছে না অপরাধী, কী করবে কর্তৃপক্ষ?

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

বিষ প্রয়োগেও মরছে না অপরাধী, কী করবে কর্তৃপক্ষ?

সম্প্রতি মৃত্যুদণ্ডের সাজা পেয়েছেন আমেরিকার বাসিন্দা অ্যালান ইউজিন মিলার। তিনটি নৃশংস খুনের অপরাধে তিনি জেলবন্দী। তবে তাকে মৃত্যুদণ্ড দিতে গিয়েই ধাক্কা খেলেন কারা কর্তৃপক্ষ। মৃত্যুদণ্ডের উপায় কাজ করল না অপরাধীর ওপর। অ্যালানকে আবার মৃত্যুদণ্ড দিতে যে উপায় বের করা হয়েছে, সেই পদ্ধতি এর আগে কখনও কোনো মৃত্যুদণ্ডের সাজাপ্রাপকের ওপর প্রয়োগ করা হয়নি।

 

বর্তমানে আমেরিকার অ্যালবামা রাজ্যের একটি কারাগারে বন্দী আছেন অ্যালান। তার বিরুদ্ধে থাকা তিনটি খুনের অভিযোগ সম্প্রতি প্রমাণিত হয়েছে। তারপরই মৃত্যুদণ্ড হয় তার।

সেখানকার কারা কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, অ্যালানকে বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে। কিন্তু সেই বিষ অ্যালানের শরীরে প্রবেশ করলেও তার মৃত্যু হয়নি।

এমনিতেই অ্যালানের স্থূল শরীরে শিরা খুঁজে বের করতে বেশ নাকাল হতে হয়েছিল জেল কর্মকর্তাদের।

অনেক কষ্টে শিরা খুঁজে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে শরীরে বিষ প্রবেশ করিয়ে কর্মকর্তারা অ্যালানের মৃত্যুর অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু সেই বিষ তার শরীরে প্রবেশ করতেই যন্ত্রণায় কাতরাতে শুরু করেন অ্যালান।

 

ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে শরীরে বিষ প্রয়োগ করার সময় শরীরে আরও দু’টি সুচ প্রবেশ করানো হয়। এর মধ্যে একটিতে শরীর অবশ করার ওষুধ থাকে এবং অন্যটিতে সংজ্ঞাহীন করার ওষুধ থাকে।

 

যন্ত্রণাহীন মৃত্যু নিশ্চিত করতে এই দু’টি ইঞ্জেকশন অপরাধীর শরীরে প্রবেশ করানো হয়।

অ্যালানের শরীরেও প্রয়োগ করা হয় এই দুই ওষুধ। কিন্তু তার শরীরে ওষুধ দু’টি কাজ না করায় বিষের প্রভাবে তার শরীরে প্রচণ্ড জ্বালা শুরু হয়।

যন্ত্রণায় চিৎকার করতে থাকেন অ্যালান। সঙ্গে সঙ্গে অ্যালানের শরীর থেকে ওই ইঞ্জিকেশনের সুচগুলো খুলে নেন ওখানে উপস্থিত কর্মকর্তারা।

 

অ্যালানের আইনজীবীর অভিযোগ, ইঞ্জেকশন প্রয়োগের কারণে অ্যালান প্রচণ্ড মানসিক এবং শারীরিক যন্ত্রণা অনুভব করেছেন। আর তাই কোনোভাবেই আর ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে বিষ প্রয়োগ করে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া যাবে না।

 

অনেক দেশেই বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়াকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে এখনও অ্যালবামার জেলগুলোতে এই উপায়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

 

সোমবার আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অ্যালানকে আর বিষ প্রয়োগ করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে না।

এরপরই বিষাক্ত ইঞ্জেকশনের পরিবর্তে নতুন উপায়ে অ্যালানকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জেল কর্মকর্তারা।

কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অ্যালানকে মৃত্যুর সাজা দিতে বিষাক্ত নাইট্রোজেন হাইপোক্সিয়া গ্যাস প্রয়োগ করা হবে।

 

এ বিষয়ে অ্যালবামার বাসিন্দাদের দাবি, বিষাক্ত ইঞ্জেকশন দিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার থেকে বিষাক্ত গ্যাস প্রয়োগ করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া অনেক মানবিক।  সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ০৮:২৬ | শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২

Swadhindesh -স্বাধীনদেশ |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement
Advisory Editor
Professor Abdul Quadir Saleh
Editor
Advocate Md Obaydul Kabir
যোগাযোগ

Bangladesh : Moghbazar, Ramna, Dhaka -1217

ফোন : Europe Office: 560 Coventry Road, Small Heath, Birmingham, B10 0UN,

E-mail: news@swadhindesh.com, swadhindesh24@gmail.com

%d bloggers like this: