শনিবার ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

নিত্যপণ্যের চড়া দামে ঈদ আনন্দ ম্লান: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ২৮ জুন ২০২৩ | প্রিন্ট

নিত্যপণ্যের চড়া দামে ঈদ আনন্দ ম্লান: রিজভী

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অসহনীয় মূল্যবৃদ্ধি এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতির কারণে দেশের মানুষের ঈদ আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

ঈদুল আজহার প্রাক্কালে জনজীবন নাকাল দাবি করে তিনি বলেছেন, একদিকে যানজটে জনভোগান্তি অন্যদিকে খাদ্যপণ্যের ঊর্ধ্বমূল্যে মানুষের প্রাণ ওষ্ঠাগত।

রিজভী বলেন, বর্তমান সরকারের দুঃশাসনে দেশের মানুষ শান্তিতে নেই। ভোটারবিহীন সরকার বিএনপিসহ বিরোধীদল ও ভিন্নমতের মানুষদের ওপর দমন-পীড়নে যতটা দক্ষ ততটাই ব্যর্থ নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে। সরকার সিন্ডিকেট-হিতৈষী বলেই দ্রব্যমূল্যের লাগাম টানতে পারছে না।

বুধবার (২৮ জুন) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সিন্ডিকেটবান্ধব সরকারের বাণিজ্যমন্ত্রী ‘সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে সংকট তৈরি হবে’ বলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে সিন্ডিকেটে জড়িতরা আরও বেশি স্ফীতকায় ও ক্ষমতাবান হয়ে উঠবে, আরো বেশি প্রণোদিত ও উৎসাহিত হবে। আসলে দেশবাসী জানে যে, সিন্ডিকেটের সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের লোকেরাই জড়িত। সেজন্যই বাণিজ্যমন্ত্রীকে সিন্ডিকেটের পক্ষাবলম্বন করতে হয়েছে।

বিশ্বে বর্তমানে খাদ্যপণ্যের দাম কমলেও বাংলাদেশে কেন লাগামহীন, এমন প্রশ্ন রেখে বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, যে দেশের অর্থনীতি অর্থপাচার আর আর্থিক প্রতিষ্ঠান হরিলুটের নীতির ওপর প্রতিষ্ঠিত সেদেশে খাদ্যপণ্যের দামে লাগাম টানা যায় না।

তিনি বলেন, মেগা দুর্নীতির ভাবধারা থেকে উৎসারিত তথাকথিত মেগা উন্নয়ন করতে গিয়ে মানুষকে কিনতে হচ্ছে ছোট মুরগি, ছোট ডিম, ছোট সাবান, ছোট রুটি। পাশাপাশি চাল, চিনি, মাংস ও সবজি কেনার পরিমাণও কমে যাচ্ছে। অর্থাৎ, গরিব মানুষেরা নিজেদের আয় থেকে প্রয়োজনীয় পরিমাণ খাদ্যপণ্য কিনতে পারছে না। সরকারের বাজেট আগের বছরের তুলনায় বাড়লেও মধ্যম ও স্বল্প আয়ের মানুষদের ব্যক্তিগত বাজেট যথেষ্ট পরিমাণে হ্রাস পেয়েছে।

রিজভী বলেন, মধ্যম ও স্বল্প আয়ের মানুষ এখন দিশেহারা। ভুক্তভোগী মানুষ বোবা কান্নায় গুমরে মরছে। সরকার রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে পণ্যমূল্য বৃদ্ধির কারণ আখ্যা দিয়ে চেঁচিয়ে বেড়াচ্ছে। অথচ যুদ্ধ যে অঞ্চলে সেই ইউরোপেই জিনিসপত্রের দাম আগের চেয়ে অনেক কমেছে। অথচ বাংলাদেশে তা আকাশছোঁয়া। ডিম, মাছ, মাংস তো ইউক্রেন থেকে আসে না। মূলত লুটপাটের সিন্ডিকেটের দুষ্টচক্রকে আড়াল করতেই যুদ্ধের অজুহাত দিচ্ছে সরকার।

তিনি বলেন, সরকারের গরিব ও মেহনতি মানুষকে পিষ্ট করার নীতির কারণেই দেশের মোট সম্পদের অর্ধেক বা ৫০ শতাংশ ১০ শতাংশ ধনীর হাতে চলে গেছে।

তিনি বলেন, গত ৬ বছরে শিল্পখাতে কর্মসংস্থান কমেছে। পাশাপাশি শ্রমিকদের মজুরিও কমেছে। এ অবস্থায় চরম মুদ্রাস্ফীতিতে অসহায় মধ্যম ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তারা প্রয়োজনের তুলনায় অর্ধেক খাবার খাচ্ছে। মানুষের ক্রয়ক্ষমতা কমে গেছে। অথচ সরকারের লুটপাট ও টাকা পাচার নীতির কারণে এক শ্রেণির মানুষ বিপুল অর্থবিত্তের মালিক বনে গেছে।

রিজভী বলেন, বিদ্যমান অর্থনীতির এ নৈরাজ্যের মধ্যে এবারের কোরবানির ঈদ উদযাপন হতে যাচ্ছে। খাদ্যপণ্যের অসহনীয় দাম এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতিতে মানুষের ঈদ আনন্দ অনেকটাই ম্লান হয়ে গেছে। গত কয়েক মাসের মধ্যে চাল, চিনি, ডাল, শাক-সবজির দাম অনেকগুণ বেড়ে গেছে। পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচসহ কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়তে বাড়তে গ্যালাক্সিতে পৌঁছেছে। যে কারণে এবার পশুর হাটেও তেমন বেচাবিক্রি নেই, পশুর হাট এবার জমে ওঠেনি।

তিনি বলেন, বাজার সিন্ডিকেট নিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে প্রভুত্ব ও জনগণকে অধীন করে রাখার ইঙ্গিত প্রকাশ পায়। সংকট উত্তরণে সরকারের সহযোগিতা ও সামাধানের মনোভাব না থাকায় জনগণ অবর্ণনীয় কষ্টে দিনাতিপাত করছে।

বিএনপির এ নেতা আরও বলেন, ঈদ আনন্দর মধ্যেও সরকারের নিপীড়নের কোনো কমতি নেই। অসহিষ্ণুতা, সীমাহীন লোভ আর রাষ্ট্রশক্তিকে আশ্রয় করে শুধুই একটি হিংসার বিকৃত রূপ দেখা যায় সরকারের আচরণে। ঈদের প্রাক্কালেও হাইকোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও আমাদের কারাবন্দি নেতাদের মুক্তি দেওয়া হয়নি। গায়েবি মামলাও অব্যাহত। সারাদেশে পুলিশের ছত্রছায়ায় আওয়ামী সন্ত্রাসীদের নারকীয় আক্রমণ চলছে। তিনি কারাবন্দি দলের সব নেতাকর্মীর মুক্তি দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারীসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১৭:৩৮ | বুধবার, ২৮ জুন ২০২৩

Swadhindesh -স্বাধীনদেশ |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

Advisory Editor
Professor Abdul Quadir Saleh
Editor
Advocate Md Obaydul Kabir
যোগাযোগ

Bangladesh : Moghbazar, Ramna, Dhaka -1217

ফোন : Europe Office: 560 Coventry Road, Small Heath, Birmingham, B10 0UN,

E-mail: news@swadhindesh.com, swadhindesh24@gmail.com