শুক্রবার ২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

দিনের আলোতেই আ.লীগকে প্রতিহত করা হবে: গয়েশ্বর

  |   সোমবার, ২৯ আগস্ট ২০২২ | প্রিন্ট

দিনের আলোতেই আ.লীগকে প্রতিহত করা হবে: গয়েশ্বর

বিএনপির চলমান আন্দোলনকে গণতন্ত্রের জন্য যুদ্ধ বলে বর্ণনা করেছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, অগণতান্ত্রিক এই সরকার রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে দলীয় গুণ্ডাবাহিনী দিয়ে রাতের আধারে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাসা-বাড়িতে হামলা চালাচ্ছে। বিএনপিকে প্রতিহত করতে তারা রাজপথে গুন্ডাপান্ডা লেলিয়ে দিচ্ছে। তাদের বর্বরতা একাত্তরের পাকবাহিনীকেও হার মানিয়েছে। আওয়ামী লীগের এসব বর্বরতার দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। রাতের অন্ধকারে নয়, দিনের আলোতেই স্বৈরাচার আওয়ামী লীগকে প্রতিহত করা হবে।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, একাত্তর সালে আমরা যখন যুদ্ধে গেছি, মায়ের কাছে ফিরে আসবো ভাবি নাই। অনেকে আসেনি। আজকেও পাকিস্তানিদের চেয়েও জঘন্য এই সরকারের চরিত্র। সুতরাং আজকের আন্দোলনটাকে মনে করতে হবে এটা গণতন্ত্রের যুদ্ধ। এই যুদ্ধে জিততেই হবে আমাদের। যেখানে যে পরিস্থিতি আসবে সেখানেই তা মোকাবেলা করতে হবে। এই দৃঢ় সংকল্প নিয়েই আমাদের রাস্তায় থাকতে হবে।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সোমবার যশোর শহরের লালদীঘিপাড়স্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। গত শুক্রবার ও শনিবার পরপর দুদিন বিএনপির প্রয়াত স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেকমন্ত্রী তরিকুল ইসলামের বাসভবনসহ বিএনপির শীর্ষ চার নেতার বাড়িতে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলা ও সর্বশেষ রোববার শহরের দড়াটানা এলাকায় দলের খুলনা বিভাগী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলামের গাড়িতে সশস্ত্র হামলার ঘটনায় সার্বিক পরিস্থি দেখতে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। এসময় তার সাথে দলের অপর স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

জেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগমের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে বিএনপির যশোর জেলা শাখার সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু যশোরের বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর অত্যাচার নিপীড়ণের আওয়ামী বর্বরতার সার্বিক চিত্র জাতীয় নেতাদের সামনে তুলে ধরেন। পরে স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। এর আগে দলের এই শীর্ষ দুই নেতা আওয়ামী সন্ত্রাসী হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রয়াত তরিকুল ইসলামের বাসভবনসহ অন্যান্য নেতাদের বাসভবনে সরেজমিনে দেখতে যান।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেছেন, রাজপথে বাঁধা আসবেই। কিন্তু তা দেখে বসে থাকলে চলবে না। যেখানে বাঁধা আসবে সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আক্রমণের জবাব আক্রমণ দিয়েই দিতে হবে। এই স্বৈরসরকারের পতন না ঘটিয়ে আমরা ঘরে ফিরবো না।

তিনি বলেন, যেখানে আইনের শাসন অচল, বিচারহীনতার কালচার চালু রয়েছে সেখানে আইনের আশ্রয় নিয়ে কোন লাভ হবে না। তারপরও আমরা আইনের আশ্রয় নেব ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করে। আইনের আশ্রয় নেওয়ার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলন চলবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, এই সরকারের প্রধানমন্ত্রী মুখে যা বলেন তা করেন না। আর যা করেন তা মুখে বলেন না। ফলে আন্দোলন ছাড়া এই সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজানো সম্ভব নয়। এই যুদ্ধ গণতন্ত্র পুনুরুদ্ধারের লড়াই। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় রাজপথে লড়াই সংগ্রাম করে এই সরকারের পতন নিশ্চিত না করা পর্যন্ত বিএনপির নেতাকর্মীরা ঘরে ফিরতে পারে না – উল্লেখ করে টুকু বলেন, এই আন্দোলন সরকারের জন্য এ্যাসিড টেষ্ট ।

তিনি বলেন, সারা দেশের ন্যায় যশোরে আমাদের নেতাদের বাসাবাড়িতে হামলার ঘটনা পাকিস্তান বাহিনীকেও হার মানিয়েছে। এই অবস্থা আর চলতে দেওয়া হবে না। হামলার জবাব হামলা দিয়েই দেওয়া হবে। এই সরকার নীতিনৈতিকতার জায়গায় এতো নীচেয় নেমে গেছে যে তারা তরিকুল ইসলামের মতো বরেণ্য রাজনীতিকের বাড়িতে হামলা করছে তারা। অথচ তরিকুল ইসলামের এই বাড়িটি এই অঞ্চলে রাজনীতির সম্প্রীতির নিদর্শন হিসেবে পরিচিতি রয়েছে।  রাতের বেলায় নেতাদের বাসাবাড়িতে হামলা করতে দ্বিধা করছে না তারা। এটা কোন সভ্য দেশের কালচার হতে পারে না। আগামীতে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে তার যোগ্য জবাব দেওয়ার জন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার আহবান জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ও সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক মফিকুল হাসান তৃপ্তি, বর্তমান নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম বকুল, খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এস এম শফিকুল আলম মনা, সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন,যুগ্ম-সম্পাদক তরিকুল ইসলাম জহির ,খুলনা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমির এজাজ খান, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবুল হোসেন আজাদ, সাবিরা নাজমুল মুন্নি, জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য, অ্যাড. মোঃ ইসহক, আব্দুস সালাম আজাদ, আলহাজ্ব মিজানুর রহমান খাঁন,মারুফুল ইসলাম, অ্যাড. হাজী আনিছুর রহমান মুকুল,মুনির আহমেদ সিদ্দিকী বাচ্চু, নগর বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম চৌধুরী মুল্লুক চাঁদ, সাধারণ সম্পাদক এহসানুল হক সেতু, মণিরামপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক পৌর মেয়র অ্যাড. শহীদ ইকবাল হোসেন, অভয়নগর উপজেলা বিএপির আহ্বায়ক ফারাজি মতিয়ার রহমান,শার্শা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক খায়রুজ্জামান মধু, ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোর্তজা এলাহী টিপু, চৌগাছা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম প্রমুখ।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১৭:১৬ | সোমবার, ২৯ আগস্ট ২০২২

Swadhindesh -স্বাধীনদেশ |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

Advisory Editor
Professor Abdul Quadir Saleh
Editor
Advocate Md Obaydul Kabir
যোগাযোগ

Bangladesh : Moghbazar, Ramna, Dhaka -1217

ফোন : Europe Office: 560 Coventry Road, Small Heath, Birmingham, B10 0UN,

E-mail: news@swadhindesh.com, swadhindesh24@gmail.com

%d bloggers like this: